জাজ সিনেমা নির্মাণের উন্নত রুচির পরিচয় দিয়েছে: শাকিব খান

0
247

জাজ মাল্টিমিডিয়া সিনেমা নির্মাণের ক্ষেত্রে উন্নত রুচির পরিচয় দিতে পারছে। তারা যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ভালো সিনেমা দিতে পারছে দর্শকদের। ‘পোড়ামন-২’’-এর মতো সিনেমা এই ঘরের। তাদের সিনেমা নির্মাণে ভালো রুচি রয়েছে। জাজ সম্পর্কে একথা বলেছেন সময়ের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। সোমবার (৩০ জুলাই) এফডিসির চার নম্বর শুটিং ফ্লোরে ছবির একটি আইটেম গানের শুটিংয়ে অংশ নেন শাকিব। সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে আড্ডায় একথা বলেন শাকিব খান।

একদিকে যেমন দেশীয় প্রযোজনার ছবিতে কাজ করছেন শাকিব তেমনি কাজ করে যাচ্ছেন ওপার বাংলার চলচ্চিত্রেও। সম্প্রতি সাফটা চুক্তিতে ঢাকায় মুক্তি পেয়েছে ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিটি। মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে ‘নাকাব’ নামের আরও একটি ছবি। ছবিটি কোরবানি ঈদের পরই মুক্তি পাবে বলে শোনা যাচ্ছে। এদিকে কোরবানি ঈদে মুক্তির লক্ষে শুটিং চলছে শাকিব খানের ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিটির।

দেশের প্রযোজক নিয়ে শাকিব বলেন, ‘দেশে একসময় প্রযোজকের অভাব ছিলো না। প্রতিযোগিতা করে সিনেমা নির্মাণ করতেন তারা। কিন্তু প্রযোজক যেন বিলুপ্ত প্রজাতি। বছরে বেশ কয়েকটি সুপারহিট হচ্ছে। তবুও প্রযোজক আসছে না সিনেমায়। আগে বড় প্রযোজকদের পাশাপাশি কম লগ্নির প্রযোজকও থাকতেন। অনেকে আসতেন যৌথভাবে। কিন্তু এখন তাও নেই। প্রযোজকরা হলেন সিনেমার প্রাণ। তাদের অভাব হলে ইন্ডাস্ট্রির তো খারাপ অবস্থা থাকবেই।

শাকিব বলেন, ‘দেশের সিনেমা দিন দিন শূন্যের কোঠায় গিয়ে ঠেকছে। কারো কোনো মাথা ব্যথা নেই। কতো সম্ভাবনায় নায়ক-নায়িকা আমাদের ছিলো। কিন্তু তাদের ভবিষ্যত অনিশ্চয়তার মুখে। সিনেমাই হচ্ছে না। যেগুলোও বা হচ্ছে সেগুলো গুণে মানে দর্শককে তৃপ্ত করতে পারছে না। আমাদের এখানকার নির্মাণ বর্তমান যুগকে ধারণ করতে পারছে না। সেজন্য দর্শকও হলে আসছে না। আমিও সম্প্রতি কিছু ছবিতে কাজ করেছি যেগুলো তৃপ্তি দেয়নি আমাকে। যে যতো কিছুই বলুক, আমাদের সিনেমা নির্মাণে কারিগরি দিকের উন্নতি ছাড়া সিনেমার সুদিন কখনোই ফিরে সম্ভব নয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ যখন কলকাতা থেকে সাফটায় আমার ছবিগুলো আসছে দর্শক হুমড়ি খেয়ে পড়ছে সিনেমা হলে। এই দর্শকই আবার আমি যখন দেশীয় কিছু নির্মাণের ছবি নিয়ে হাজির হই হলে আসছে না। কেন? সোজা পার্থক্যটি হলো নির্মাণের পরিচ্ছন্নতা, রঙিন ফ্রেম, বিনোদনে ভরপুর কোরিওগ্রাফি, গল্প ও চরিত্রে বর্তমান যুগকে ধারণ করতে পারছে কলকাতার ছবিগুলো।

দেশের দর্শক ভালো সিনেমা দেখতে চায়। আমরা তাদের চাহিদা মেটাতে পারছি না। উল্টো বলছি দর্শক হলে আসে না। এদেশের দর্শকের দুর্ভাগ্য যে নিজের দেশের নায়ককে তাদের আমদানি করে দেখতে হচ্ছে। এটা আমাকে কষ্ট দেয়। আমরা যদি এত বিভক্তিতে না গিয়ে নিজেদের কাজের মানটাকে বাড়িয়ে নিতে পারতাম তবে আজকের দিনটা দেখতে হতো না। এখনো সময় আছে, চলচ্চিত্র বাঁচাতে নিজেদের কারিগরি মানের উন্নয়নে মনযোগ দেয়ার।

নতুন ছবির কাজের ব্যাপারে শাকিব খান জানান, অমিতাভ রেজার ‘রিক্সা গার্ল’ ছবিতে কাজ করবেন। শাহীন সুমনের ছবিটির শুটিংয়েরও প্রস্তুতি চলছে। কলকাতার কিছু ছবি নিয়েও চলছে আলোচনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here