চাঁদই হচ্ছে একমাত্র ‘হল্টিং স্টেশন’

0
214

বিজ্ঞানীরা বলছেন, খনিজ পদার্থ চাঁদের অনেক গভীরে রয়েছে। তাই চাঁদ থেকে খনিজের উত্তোলন করা কষ্টসাধ্য। খনিজ পদার্থ আনার জন্য যেতে হবে গ্রহাণুগুলিতে। আর তার জন্য চাঁদকেই বানাতে হবে আমাদের ‘হল্টিং স্টেশন’।

শুধু তাই নয়, সেই সব খনিজ পদার্থের গুদামও বানাতে হবে চাঁদে। তাই আগামী ৩০-৪০ বছরের মধ্যেই চাঁদ হয়ে উঠবে আমাদের ভিন গ্রহে যাওয়ার জন্য এক ও একমাত্র ‘হল্টিং স্টেশন’।

খনিজ পদার্থের নিষ্কাশন ও প্রক্রিয়াকরণের কাজটাও করতে হবে চাঁদেই। যে দ্রুত হারে পৃথিবীতে মজুত করা খনিজ পদার্থ আমরা শেষ করে ফেলছি, তাতে সেই কাজ শুরু করে দিতে হবে তাড়াতাড়ি।

ব্রহ্মাণ্ডের ভিন্ন মুলুকে যাওয়ার রুটে চাঁদই আমাদের সবচেয়ে কাছের প্রতিবেশী। অদূর ভবিষ্যতে মানবসভ্যতাকে বেঁচে থাকার প্রয়োজনে একটু একটু করে ‘লাল গ্রহ’ মঙ্গলে বানাতেই হবে ‘দ্বিতীয় উপনিবেশ’। আর সেটা তো এক দিন বা একটা বছরে হবে না।

কারণ, মঙ্গল রয়েছে অনেক অনেক দূরে। সভ্যতার একটা অংশকে তার যাবতীয় লটবহর নিয়ে মঙ্গল মুলুকে উঠে যেতে হলে কাছের চাঁদেই আগে পা রাখতে হবে। সেখান থেকেই চালিয়ে যেতে হবে একের পর এক মঙ্গল বা অন্য কোনো গ্রহের অভিযান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here