নতুন এক অভিজ্ঞতা

0
172

রফিকুল ইসলাম রনী: ঢাকায় সাংবাদিকতার দশ বছরের প্রায় নয় বছর হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ কভার করছি। প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সংগ্রহের জন্য গণভবনে গেটে বা জনসভাস্থলে প্রবেশের সময় স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স-এসএফএফ’র কাছে একবার বা দুবার (দুটো গেট থাকলে) আমাদের (সাংবাদিকদের) পত্রিকার কার্ড, এক্রিডিটেশন কার্ড ও এসবি কার্ড দেখাতে হয়।

তাছাড়া এই সময়ে কখনো কাউকে ‘আমি সাংবাদিক’ সেটা প্রমাণের জন্য কার্ড দেখাতে হয়নি। কিন্তু আজ ব্যতিক্রমী পরিস্থিতির মুখে পড়লাম। বাসা থেকে বের হয়ে মালিবাগের আবুল হোটেলের সামনে নিরাপদ সড়কের দাবিতে বৃষ্টিতে ভিজে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করে বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছে। পেশাগত দায়িত্ব পালনের জন্য বাইক থেকে নেমে ছবি তুলছিলাম।

এসময় সময় ৫-৬ জন শিক্ষার্থী দৌড়ে এসে প্রথমে ফোন নিয়ে নেয়। বললাম ভাই আমি সাংবাদিক। তোমরা বৃষ্টিতে ভিজে দাবি করছ, সেটার ছবি তুলছিলাম। এরমধ্যে একজন বলল-শালা পাইছি আইফোন টেন, ওয়াটার প্রুফ। আরেকজন বলল কিসের বালের সাংবাদিক-সরকারের দালাল, ভিডিও করছে, ধর শালাকে।

আরেকজন বলল কার্ড দেখান কিসের সাংবাদিক? মানিব্যাগ থেকে কার্ড বের করলাম-ওদের দেখালাম। ধীরে ধীরে শিক্ষার্থীরা আরো জড়ে হতে থাকলো, কেউ চিৎকার করছেন, এই আমাদের ভিডিও করছে, সবাই আমার দিকেই আসছে, যার যা মুখে আসে অকথ্য ভাষায় গালিও দিচ্ছে। আমি কার্ড নিয়ে দাঁড়িয়ে যে আসছে, তাদেরকেই দেখাতে হচ্ছে, এদের একজন-বলল, এই মনে হয়, সত্যি সাংবাদিক ফোনটা দিয়ে দে—এরপর ফোন আমার হাতে দিল।

এরপরও নিস্তার নেই-আরো কয়েকজনকে দেখাতে হলো পত্রিকার কার্ড। বৃষ্টি তো থেমে নেই-ভিজে গেলাম। বৃষ্টির মধ্যেই বাইকে উঠে মনে মনে বললাম-বাবা তোরা মানুষ হ-।

মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ কভার করতে গিয়েও এতজনকে বা এত বার কার্ড দেখাতে হয়নি। যা আজ তোমরা করলে- নতুন এক অভিজ্ঞতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here