ভৈরবে ২ ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

0
259

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ ) প্রতিনিধি : ভৈরবে শ্রী-নগর ইউনিয়ন পরিষদের ২ সদস্যের বিরুদ্ধে কাচাঁ সড়কে মাটি ভরাটের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে ।

২০১৭-১৮ অর্থ বছরে ওই ইউনিয়নের ভবানিপুর-সোলায়মান পুর এবং বাউলবাড়ি-মালো ফকিরের বাড়ির কাচা সড়কে মাটি ভরাটের জন্য ২ লাখ ৪৩ হাজার টাকা (টি আর ) বরাদ্ধ দেয়া হয় । কিন্ত ইউপি সদস্য সেলিম মিয়া ও আক্তার হোসেন সড়কে মাটি ভরাট না করে ।

তাদের পছন্দ সই লোক জনদেরকে দিয়ে কমিটি গঠন করে প্রকল্পের পুরো টাকা আত্মসাত করেছে বলে এলাকাবাসিরা গত ২ আগস্ট তারিখে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কাজী ফয়সালের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করেছেন । অভিযোগে আরো জানাযায় সড়কে মাটি ভরাট না করায় সড়কের বিভিন্ন অংশে ভাঙন ধরে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে । এতে জনগণের চলাচলে মারাত্মক অসুবিধা সৃষ্টি হচ্ছে।

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক,দূনীর্তি দমন কমিশন,ভৈরব উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান,ভৈরব উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি,সাধারন সম্পাদক ও ভৈরব প্রেস ক্লাবসহ বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপি দিয়েছেন ।

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে সেলিম মিয়া ও আক্তার হোসেন জানান, আমাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ করেছে তা সম্পূণৃ মিথ্যা ও বানোয়াট । কোন অনিয়ম ও দূনীতি আমরা করিনি । আমরা আমাদের কাজ সুন্দর ও সঠিকভাবে করেছি । তদন্ত করলে সঠিকটি বেরিয়ে আসবে । তাছাড়া চেয়ারম্যানের সাথে আমাদের বনিবনা না থাকায় চেয়ারম্যান সহ এলাকার কিছু লোক আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে ।

এ বিষয়ে শ্রী-নগর ইউপি চেয়ারম্যান সার্জেন্ট (অবঃ ) মোঃ তাহের জানান এলাকাবাসিদের অভিযোগে জানতে পেরেছি সড়কে মাটি ভরাট না করে প্রকল্পের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে, সেলিম মিয়া ও আক্তার হোসেনের বিরুদ্ধে এলাকাবাসিরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কাজী ফয়সালের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ করেছে । তাছাড়া এ ২ ইউপি সদস্যের সাথে আমার ব্যক্তিগত কোন শত্র“তা নেই ।

এ বিষয়ে ভৈরব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ কাজী ফয়সাল জানান অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here