এখন মামলাকে তেমন কিছু মনে করি না: মির্জা ফখরুল

0
159

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট: নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উস্কানি দাতা হিসেবে নিজের বিরুদ্ধে মামলা প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন,’ আমরা বহুবার জেলে গিয়েছি আমাদেরকে নির্যাতন করা হয়েছে ৫০০ এর অধিক নেতা গুম হয়েছে হাজার হাজার নেতাকর্মীর নামে মামলা হয়েছে আজ শুনলাম আমার নামেও মামলা করা হয়েছে এখন আর মামলাকে তেমন কিছু মনে করি না।

সোমবার (৬ আগস্ট)জাতীয় প্রেসক্লাবে উদ্বগ্ন নাগরিক সমাজের ব্যানারে’শিক্ষার্থীদের ব্যানারে প্রতিবাদ ও সংগতি সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গণতন্ত্রের কথা বলার জন্য আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে। আজকে শুনেছি যে নতুন করে আমার নামে একটি মামলা হয়েছে আমরা মামলাকে এখন আর বেশি কিছু একটা মনে করিনা আমার মামলা ৮৬ আমাদের বেশিরভাগ নেতার মামলা ৪০-৫০ দেড়শ দুইশ পার হয়ে গেছে পার হয়ে গেছে।এটা কোন সমস্যা নয়, মূল সমস্যা হলো সেটা এই যে আমাদের ছেলেমেয়েরা যে আন্দোলন করছে, মরছে তাদের জন্য কি বাস যোগ্য একটি বাংলাদেশ করে যেতে পারবো।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘ছেলেরা আমাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে।তাদের এই আন্দোলন আমাদেরকে নাড়া দিয়েছে।আমরা বেশ কিছুদিন থেকেই বলে আসছি এই স্বৈরাচারী ফ্যাসিবাদ সরকারের কথা। এর সাথে বলে আসছি জাতীয় ঐক্য ছাড়া এই বিপদ থেকে মুক্ত হওয়া সম্ভব না। আজকে আমাদের ছেলেরা আমাদের একটা সুযোগ করে দিয়েছে এখন দায়িত্ব আমাদের সব রাজনৈতিক দলের ও জাতির তাদের সাথে একাত্মতা পোষন করা।

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ব্যানার ফেস্টুন ফেসবুকে এসেছে তার মধ্যে একটি ব্যানার আমাকে আকর্ষণ করেছে। তারা সেখানে লিখেছে রাষ্ট্র মেরামতের কাজ করা হচ্ছে। ছেলেরা আমাদেরকে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে যে এখন রাষ্ট্রের মেরামত প্রয়োজন।অথচ সেই ছাত্রদের উপর হামলা করছে সরকারদলীয় নেতাকর্মীরা।তারা(সরকার) পুলিশদের কে লেলিয়ে দিচ্ছে তাদের গুন্ডা সন্ত্রাসদের কে লেলিয়ে দিচ্ছে আর মিথ্যাচার করছে।

“আজকের পত্রিকাগুলো দেখলেই বুঝতে পারবেন শান্তিপ্রিয় কোমলমতি ছাত্রদের উপর কারা হামলা করলো, সাংবাদিকদের উপরে জঘন্যতম আক্রমণ করলো কারা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের উপর হামলা করল কারা বদিউল আলম মজুমদারের বাড়িতে হামলা চালালো আরও অনেক কিছুই ঘটেছে যা আমরা জানি না অনেকের বাসায় বাসায় হুমকিও দেয়া হয়েছে তাদের মধ্যে আমাদের একজন ব্যারিস্টার রুমিন তিনি বাসা থেকে বের হওয়ার সময় এসব সন্ত্রাসীরা তাকে হুমকি দিয়েছে বাসা থেকে বের হতে পারবেন না কিছু বলতে পারবেন না”

ছাত্রদের আন্দোলন এক অভূতপূর্ব আন্দোলন উল্লেখ করে সাবেক এই ছাত্রনেতা বলেন,’কোন ঝামেলা নেই, সমস্যা নেই তাদের আন্দোলনে নিয়ম-শৃঙ্খলা ভাবে তারা আন্দোলন করছে তাদের এই আন্দোলন দেখে আমাদের কৈশোরের কথা মনে পড়ে যায় পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন যে আন্দোলর করা হয়েছিলো।

সরকারকে দানবীয় সরকার আখ্যায়িত করে এদের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়া আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন,’সাবেক প্রধান বিচারপতি বলে গেছেন একটি দানবীয় শক্তি সবকিছু দখল করে আছে আমাদের আর কিছুই নেই, আমাদের পার্লামেন্ট নেই আমাদের প্রশাসন সম্পূর্ণরূপে দলীয়করণ হয়ে গেছে গণমাধ্যমকে প্রচন্ড নির্যাতন করে তাদের মুখ বন্ধ করার চেষ্টা করা হচ্ছে এই অবস্থায় আমাদের একমাত্র দায়িত্ব ও কর্তব্য হচ্ছে সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই ভয়াবহ দানবের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করা আমাদের অর্জিত সম্পদ রক্ষা করা।

শিক্ষার্থীদের আজকের এই সমস্যার কোনো বিচ্ছিন্ন সমস্যা না দাবি করে তিনি বলেন,’কতকাল প্রধানমন্ত্রী বলেছেন অনেক হয়েছে এবার বাড়ি ফিরে যাও আমি আর কোন মায়ের বুক খালি দেখতে চাই না এর অর্থ কি তারপর এই হামলা শুরু হয়েছে।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন অনেক সহ্য করেছি ধৈর্যের একটা সীমা আছে। সমস্যার সমাধান করেন? তা তো করবেন না প্রতারণা করবেন যেমন প্রতারণা করছেন এ দেশের মানুষের সাথে সারাক্ষণ।কোটা আন্দোলনে প্রতারণা করেছেন এর আগে ২০১৪ সালে নির্বাচনের সময় বলেছিলেন এটা সাংবিধানিক নিয়ম রক্ষার নির্বাচন। এটা করেই আমরা একসাথে বসে একটা সিদ্ধান্ত নিবো। করেননি সেখানে প্রতারণা করেছেন।

গণ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা: জাফরুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড.আসিফ নজরুলেরর সঞ্চালনায় সংগতি সমাবেশে সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা: এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী,গনফোরাম সভাপতি সংবিধান প্রণেতা ড.কামাল হোসেন,বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গর্ভনর সালেহ উদ্দীন আহমেদ,নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না,কল্যান পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল(অব:)সৈয়দ মোহাম্মাদ ইব্রাহিম বীর প্রতিক,ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মাদ মুনসুর,বিকল্পধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর:(অব:)আব্দুল মান্নান,জেএসডির সাধারন সম্পাদক আব্দুল মালেক রতন,নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা সাবেক সাংসদ এস এম আকরাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম,সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স,সহ-প্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামিমুর রহমান প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here