বিরল ব্লাডগ্রুপ ‘এইচএইচ’

0
134

মোস্তাফিজুর রহমান: বিরল ব্লাডগ্রুপ হিসেবে আমরা নেগেটিভ গ্রুপের ব্লাডগ্রুপগুলোর কথাই জানি। কিন্তু আদৌ কি তাই?

‘এ’,‘বি’,‘এবি’ বা ‘ও’ ব্লাড গ্রুপের নাম তো শুনেছেন। তার সঙ্গে ‘বম্বে ব্লাড গ্রুপ’ বা ‘এইচএইচ ব্লাড গ্রুপ’ এর শুনেছেন কখনো? শুনে থাকুন অথবা নাই থাকুন, এই ব্লাড গ্রুপটিই কিন্তু বিশ্বের সব থেকে বিরল ব্লাড গ্রুপ। কারণ, প্রতি দশ লক্ষ মানুষের মধ্যে মাত্র চারজনের শরীরে এই ব্লাড গ্রুপের রক্ত পাওয়া যায়। অন্যান্য ব্লাড গ্রুপের রক্ত পাওয়া গেলেও ‘বম্বে’ ব্লাড গ্রুপের রক্ত পাওয়া অত্যন্ত কঠিন।

বিভিন্ন ব্লাড গ্রুপের মধ্যে ফারাক করা হয় সেগুলির মধ্যএ কি ধরনের অ্যান্টিজেন এবং অ্যান্টিবডি রয়েছে, তার ভিত্তিতে। এই ভাবেই ‘এ’,‘বি’ এবং ‘এবি’ এবং ‘ও’ ব্লাড গ্রুপ চিহ্নিত করা হয়।

এছাড়াও থাকে ‘আরএইচ’ ফ্যাক্টর। ১৯৫২ সালে তৎকালীন বম্বেতে ওয়াই জি ভিড়ে এই ব্লাড গ্রুপের আবিষ্কার করেছিলেন।

বম্বেতে আবিষ্কার করা হয় বলেই এর নাম দেওয়া হয় বম্বে ব্লাড গ্রুপ। কিন্তু, চিকিৎসার পরিভাষায় এর নাম এইচএইচ ব্লাড গ্রুপ।

আবিষ্কারের সময় দেখা যায়, এই ব্লাড গ্রুপের রক্তে ‘এইচ’ নামে একটি অ্যান্টিজেন রয়েছে, যা আগে কোনও ব্লাড গ্রুপে দেখা যায়নি। বম্বে ব্লাড গ্রুপের বিশেষত্বই হল, যে এই ব্লাড গ্রুপ যাঁদের রয়েছে, তাঁরা অন্যকে রক্ত দান করতে পারবেন, কিন্তু নিজে অন্য কোনও গ্রুপের রক্ত গ্রহণ করতে পারবেন না।

একটি সমীক্ষার থেকে বলা হয়, মুম্বইয়ের মোট ০.০০১ শতাংশ মানুষের শরীরে এই বম্বে ব্লাড গ্রুপ রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here