খ্রিস্টান রীতিতে বিয়ের চুমু

0
337

বলিউডে বিয়ের মৌসুম চলছে। একের পর এক তারকাদের বিয়ের ধুম লেগেছে। রণভীর কাপুর ও দীপিকা পাড়ুকোনের বিয়ের রেস কাটতে না কাটতেই এর মধ্যে বিয়ে করেছেন দীপিকা পাড়ুকোন ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। জমকালো আয়োজনে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে তাদের।

বিয়ের কয়েক দিন পার হতে না হতেই সোশ্যাল মিডিয়াতে প্রকাশ হয়েছে প্রিয়াঙ্কা-নিকের একটি ঘনিষ্ঠ ছবি। এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে সেটা। এই ছবিটিতে নিক ও প্রিয়াঙ্কাকে চুম্বনরত অবস্থায় দেখা যাচ্ছে। যদিও খ্রিষ্টান মতে বিয়েতে একে-অপরকে চুম্বন রীতিতেই পড়ে। তার পরেও এই ছবি যেন আলাদা আবেদন তৈরি করেছেন নেটিজেনদের মধ্যে।

শুধু এই ছবিই নয় বিয়ের অনেক আগে থেকেই একের পর এক ছবিতে সামনে এসেছেন নিক-প্রিয়াঙ্কা। বিয়ের বেশ কিছু ছবিও ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে এই সবকিছুকে ছাপিয়ে গিয়েছে নিক আর প্রিয়াঙ্কার ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি।

বিয়ের ছবিতেও একেক সময় একেক রূপের হাজির হচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা। কখনও খ্রিষ্টান বেশে তো কখনও দেশি গার্ল হিসাবে দেখা যাচ্ছে তাকে।

 

আরও পড়ুন …

উত্তেজনাভরা যৌনমিলন নয়, সঙ্গীর হাতে বানানো এক কাপ গরম চা বা কফির মধ্যেই নাকি সম্পর্কের উষ্ণতা খুঁজে পান নারী। শুনতে অবাক লাগলেও বেশিরভাগ নারীই নাকি এমনটি মনে করেন। নয়া এক গবেষণায় উঠে এসেছে এমনই অবাক করা তথ্য।

এই গবেষণায় আরও উঠে এসেছে, সন্তানহীন দম্পতিরা বেশি সুখি। কারণ যাদের সন্তান আছে তাদের চেয়ে তারা নিজেদের সঙ্গে অনেক বেশি সময় কাটাতে পারেন।

এছাড়া ওই সমীক্ষায় দেখা গেছে, স্বামীর সঙ্গে চা বা কফি হাতে বিছানায় আধশোয়া হয়ে টিভি দেখার মধ্যে অনেক বেশি রোমান্টিকতা খুঁজে পান নারীরা। অনেক ক্ষেত্রে তা যৌন মিলনের চেয়েও সুখকর।

যুক্তরাজ্যের একদল গবেষক বিষয়টি নিয়ে টানা দু বছর ৫ হাজার নারীর ওপর সমীক্ষা চালিয়েছেন। সমীক্ষার পর তারা যে তথ্য প্রকাশ করেছেন তাতে দেখা যায়- সমাজের মধ্যে অন্য সবার চেয়ে মায়েরাই বেশি সুখী।

গবেষকরা বলেছেন, যে পরিবারে স্বামী-স্ত্রী সকাল-সন্ধ্যায় একসঙ্গে বসে চা বা কফি পান করেন এবং ভালোবাসার কথা বলেন কিংবা সংসার নিয়ে ভাবেন, তাদের জীবন শান্তিপূর্ণ। কোনও কোনও সময় ভালোবাসার গালভরা দু’চার কথার চেয়ে ভালোবসাপূর্ণ আচরণ মনে অনেক বেশি দাগ কেটে যায়।

গবেষকদের দাবি, মুখে ভালোবাসর কথা বলার চেয়ে তা আচরণের মাধ্যমে ফুটিয়ে তোলাই অনেক সময় বেশি কার্যকর। আর নারীরা সেটাই চায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here