কমরেড ফরহাদের ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

0
118

মহান মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রের সংগ্রামের অন্যতম স্থপতি, সিপিবির সাবেক সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ।

১৯৮৭ সালের ৯ অক্টোবর তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের রাজধানী মস্কোতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। কমরেড ফরহাদ ১৯৩৮ সালের ৫ জুলাই পঞ্চগড়ের বোদায় জন্মগ্রহণ করেন।

মেধাবী ছাত্র মোহাম্মদ ফরহাদ মহান ভাষা আন্দোলন, ’৬২-র শিক্ষা আন্দোলন, ’৬৯-র গণঅভ্যুত্থান, ’৭১-র মুক্তিযুদ্ধ, স্বৈরাচারবিরোধী লড়াইয়ে প্রথম সারির নেতৃত্বের ভূমিকা পালন করেন।

রাজনৈতিক জীবনে তিনি বহুবার জেল, জুলুম, হুলিয়া, নির্যাতন ভোগ করেন। ৩৫ বছরের ঘটনাবহুল রাজনৈতিক জীবনে তিনি পাকিস্তান আমল এবং স্বাধীন বাংলাদেশে জিয়া-এরশাদের আমলে দীর্ঘ প্রায় ১৪ বছর আত্মগোপন বা কারান্তরালে ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র অবস্থায় কমরেড ফরহাদ ’৫৯ সাল থেকে গোপনে ছাত্রদের সংগঠিত করতে থাকেন।

১৯৬২ সাল থেকে প্রায় এক বছর হুলিয়া মাথায় নিয়ে গোপনে ছাত্র গণআন্দোলন সংগঠন ও শ্রমিক শ্রেণীর পার্টির বিকাশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। ’৬৯-র গণঅভ্যুত্থানে তার ভূমিকা অসামান্য।

মুক্তিযুদ্ধে কমিউনিস্ট পার্টি-ন্যাপ-ছাত্র ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ গেরিলা বাহিনীর প্রধান সংগঠক ছিলেন তিনি। তার ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকীতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

এক বিবৃতিতে নেতারা কমরেড মোহাম্মদ ফরহাদের মৃত্যুবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের জন্য সব জেলা, উপজেলা ও শাখা সংগঠনের প্রতি আহ্বান জানান।

দিবসটি উপলক্ষে সিপিবি ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। আজ সকাল ৮টায় বনানী কবরস্থানে তার সমাধিতে সিপিবিসহ বিভিন্ন দল-সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। বিকাল ৫টায় দেশব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে কেন্দ্রীয়ভাবে মুক্তিভবনের মৈত্রী মিলনায়তন স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here