যুদ্ধ চাই না, কিন্তু প্রস্তুত আছি : ট্রাম্প

0
11

যুদ্ধ চান না যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তবে তিনি বলেছেন, অন্য যেকোনো দেশের চেয়ে আমরা যুদ্ধের জন্য অধিক প্রস্তুত আছি। সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে ইয়েমেনের বিদ্রোহী হুতিদের ড্রোন হামলার পর যখন মধ্যপ্রাচ্যে নতুন করে যুদ্ধের আশঙ্কা বৃদ্ধি পেয়েছে তখন এমন মন্তব্য করেছেন ট্রাম্প।

তিনি আরো বলেছেন, সৌদি আরবের ওই হামলার নেপথ্যে তেহরান আছে এ বিষয়ে যতক্ষণ পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পাওয়া না যাবে, ততক্ষণ পর্যন্ত প্রতিশোধ নেয়ার কোনো পথ বেছে নেবেন না তিনি। হুতিরা গত শনিবারের হামলার দায় স্বীকার করলেও তা প্রত্যাখ্যান করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও।

হামলার জন্য তিনি সরাসরি দায়ী করেছেন ইরানকে। তবে ট্রাম্প সেরকম মন্তব্য করেন নি। তিনি বলেছেন, মনে হচ্ছে এ হামলার জন্য দায়ী ইরান। তাই তিনি সুনির্দিষ্ট প্রমাণ চাইছেন। এ খবর দিয়েছে অনলাইন স্কাই নিউজ।

সোমবার ট্রাম্প জানান, দেখে মনে হচ্ছে সৌদি আরবে তেলক্ষেত্রের ওপর হামলার পেছনে ইরান দায়ী তবে তিনি এখন যুদ্ধে রাজি নন।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভাষ্য, সৌদিতে এই হামলার কারণে জ্বালানির দাম বৃদ্ধি এবং মধ্যপ্রাচ্যে নতুন সংঘাতের আশঙ্কা সৃষ্টি হলেও যুদ্ধে জড়াতে চাইছেন না তিনি।

শনিবারের হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অপরিশোধিত তেলক্ষেত্র এবং কয়েক দশকের মধ্যে অপরিশোধিত তেলের দাম এই প্রথম লাফিয়ে বাড়ল।

এদিকে সৌদি আরবে হামলার পেছনে ইরান জড়িত কিনা সেটি তদন্ত করে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ট্রাম্প বলেন, “অবশ্যই এই মুহূর্তে সেটিই মনে হচ্ছে।”

পূর্ববর্তী প্রেসিডেন্টের শুরু করা যুদ্ধ থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে ফিরিয়ে আনতে বা সেসব যুদ্ধের সমাপ্তি টানতে দায়িত্বের বড় অংশ ব্যয় করেছেন ট্রাম্প। ফলে তিনি সৌদি আরবের জন্য নতুন করে সংঘাতে জড়াতে চান না।

ট্রাম্প বলেন, “আমি এমন ব্যক্তি, যে যুদ্ধ চায় না।”

অথচ একদিন আগেই তিনি জানান, যুদ্ধের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র। সৌদির সম্মতি পেলেই ইরানে হামলা চালানো হবে। কিন্তু সোমবার এমন সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে আসলেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here