জেনেনিন যে কারণে শাকিব-অপুর সংসার ভেঙেছিল !

0
415

২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। ২০১৬ সালের ২৭শে সেপ্টেম্বর জন্ম হয় তাদের সন্তান আব্রাম খান জয়ের।

কিন্তু কী ঘটেছিলো শাকিব-অপুর মধ্যে? ৮ বছরের বেশি সময় লুকিয়ে সংসার করেছেন যারা, এক বছরের মাথাতেই কেন তাদের দাম্পত্যে এলো ভাঙন? চলুন জেনে নেয়া যাক।

দেশের বিনোদন জগৎকে কাঁপিয়ে দিয়েছে ২০১৭’র যে ঘটনা- তা হলো সুপারস্টার শাকিব খানের সঙ্গে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের বিয়ের খবর ফাঁস হওয়ার ঘটনা। এপ্রিলের মাঝামাঝিতে ৬ মাসের শিশু সন্তান আব্রাম খান জয়কে নিয়ে টিভি পর্দায় হাজির হন অপু। পরবর্তী ঘটনাপ্রবাহ এতোটাই জটিল মোড় নেয় যে ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে শোনা যায় শাকিব কর্তৃক অপুকে ডিভোর্স দেয়ার খবর।

স্বামী, সন্তান- সব কিছু লুকিয়ে অনেকটা পর্দার আড়ালেই চলে গিয়েছিলেন অপু বিশ্বাস। কিন্তু হঠাৎ এমন কী হলো যে তাকে গণমাধ্যমের সামনে আসতে হয়? অপুর অভিযোগ ছিলো, তার অনুপস্থিতিতে শাকিব খানের হৃদয় দখল করেছেন আরেক নায়িকা- বুবলি। তার সঙ্গে শাকিবের অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগও তোলেন তিনি। শাকিবকে কেন্দ্র করে ওই সময়ে অপু-বুবলির কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি নিয়ে বেশ সরগরম ছিলো মিডিয়াপাড়া।

এদিকে বছর শেষে শাকিব অভিযোগ তোলেন অপুও জড়িয়ে পড়েছেন পরকীয়ায়। তালাকনামায় শাকিব অভিযোগ তুলেছিলেন, ছেলে আব্রামকে একা রেখে ‘ছেলেবন্ধু’কে নিয়ে কলকাতা গিয়েছিলেন অপু। তার সেই ছেলেবন্ধু যে চিত্রনায়ক বাপ্পী- কিছুদিনের মধ্যেই এ নিয়ে মিডিয়াপাড়ায় শুরু হয় ফিসফাস। অবশ্য অপু কিংবা বাপ্পী- দুজনই এই কথা অস্বীকার করেছেন।

শাকিব-অপুর বিয়ে হয় গোপনে। এমনকী তাদের বিয়ের কাবিননামাও কখনও প্রকাশ পায়নি গণমাধ্যমে। সেই কাবিননামায় দেনমোহরের অর্থ কত- তা নিয়েও মতবিরোধ দেখা গেছে ‘কোটি টাকার কাবিন’ খ্যাত এই জুটির মধ্যে। অপু দাবি করেন দেনমোহরের অঙ্ক ছিলো এক কোটি সাত লাখ টাকা। ওদিকে শাকিব তালাক নামায় উল্লেখ করেন, দেনমোহরের অর্থ ছিলো সাত লাখ টাকা। এ নিয়েও পরবর্তীতে একে-অন্যকে নিয়ে নানা কথা বলেছেন শাকিব-অপু।

নভেম্বরের মাঝামাঝিতে চিকিৎসার জন্য কলকাতায় গিয়েছিলেন অপু। কিন্তু সন্তানকে নিজের সঙ্গে না নিয়ে শিশু আব্রামকে তিনি রেখে যান সহকারীর কাছে। বাড়িতে লাগিয়ে যান তালা। এরমধ্যে আব্রামকে দেখতে গিয়ে দরজায় তালা দেখে ভীষণ ক্ষুব্ধ হন শাকিব। পুলিশেও জানান অভিযোগ। তখন অপুর উদ্দেশ্যে তিনি বলেছিলেন, ‘মা হিসেবে অপু বিগ জিরো’।

ওদিকে অপুর পাল্টা অভিযোগ ছিলো, সন্তানের ভরন-পোষণের জন্য অর্থ দিলেও বাবা হিসেবে আর কোনো দায়িত্ব পালন করেন না শাকিব। এমনকী শাকিবের পরিবারের কেউও আব্রামকে দেখাশোনার দায়িত্ব নিতে চাননা বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বিয়ের সময় হিন্দু ধর্মের অনুসারী অপু বিশ্বাস ধর্ম পরিবর্তন করেছিলেন। নাম নিয়েছিলেন অপু ইসলাম খান। কিন্তু ধর্মান্তরিত হওয়োর পরও ‘আদর্শ ইসলামিক নারী’র মতো চলাফেরা করেন না অপু- এই অভিযোগও তালাকনামায় তুলেছিলেন শাকিব খান। ওদিকে অপু বেশ কিছু অনলাইন পোর্টালে অভিযোগ তোলেন, জোর করেই তাকে ধর্মান্তরিত করেন শাকিব!

নিজেদের মধ্যকার বিরোধের কারণে আব্রামের প্রথম জন্মদিনের আয়োজন নিজেই করেন অপু বিশ্বাস। এমনকী জন্মদিনের দাওয়াতপত্রেও স্বামীর নাম দেননি তিনি। শাকিবও আসেননি অনুষ্ঠানে। এ নিয়েও তাদের মধ্যে মতবিরোধ হয় বলে জানা যায়।

বিয়ের খবর ফাঁস হওয়ার পর অপু বিশ্বাসকে আর কখনোই সিনেমায় অভিনয় না করার শর্ত দিয়েছিলেন শাকিব। প্রাথমিকভাবে সেই শর্ত মেনেও নেন অপু। কিন্তু পরবর্তীতে নতুন তিনটি সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন তিনি। শোনা যায়- এ নিয়েও নাখোশ হয়েছিলেন শাকিব। আর সেখান থেকেই নতুন করে দ্বন্দ্বের শুরু।

ভাঙা এই সংসারের সন্তান আব্রাম খান জয়-এর ভবিষ্যত এখন কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়- সেটাই এখন দেখার বিষয়।

এতকিছুর পরও মিডিয়ার প্রভাবশালী তারকারা শাকিব-অপুর সংসার জোড়া লাগানোর অনেক চেষ্টাই করেছেন। ২২ নভেম্বর শাকিব তালাকের নোটিশ পাঠানোর পর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনও দুইবার ডেকেছে মধ্যস্থতার বৈঠক। কিন্তু বিফলে গেছে সবই, শেষ পর্যন্ত শাকিবের তালাক মেনে নিয়েছেন অপু। তিন মাস হয়ে যাওয়ায় এখন শাকিবের আইনজীবি জানিয়েছেন এখন থেকে আর স্বামী-স্ত্রী নন তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here