ফরিদপুরে সরকারি জায়গা দখল করে প্রাচীর নির্মান

0
189
কে. এম. রুবেল, ফরিদপুর : ফরিদপুর জেলার বোয়ালমারী উপজেলায় সরকারি জায়গা অবৈধ ভাবে দখল করে বিল্ডিং ও প্রাচীর নির্মান করছে প্রভাব শালী ব্যাক্তি।
উপজেলার সাতৈর ইউনিয়নের সাতৈর বাজারের তহশীল অফিসের ৩শ গজের মধ্যে সরকারি খাল দখল করে এই ইমারত তৈরী করা হচ্ছে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সাতৈর বড়নগর ৪৬নং মৌজার ১নং খাস খতিয়ান ভুক্ত ৬৩ দাগের খালদখল করে উত্তর দিক থেকে শুরু করে দেিনর দিকে প্রায় ২শ গজ লম্বা প্রাচীর নিমার্ণ করছে স্থানীয় বাজারের প্রভাবশালী ব্যবসায়ী ও বোয়ালমারী উপজেলার পূর্জা উদযাপন কমিরিটর সভাপতি সুবাস চন্দ্র সাহা।
এক বছর পুর্বে তিনি ওই খালের কিছু অংশ দখল করে প্রাচীর নির্মাণ করেছিলেন বলে অভিযোগ রয়েছে। খালদখল করে প্রাচীর নির্মাণ করায় খালটি আঁকারে ছোট হয়ে যাচ্ছে। ফলে বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানি পার্শ্ববর্তী হাই স্কুলে ঢুকে পড়ার শংকা রয়েছে। এদিকে একই খালের বাজারের উত্তর পাশে বিল্ডিং নির্মাণ করছেন শেরাপুর গ্রামের মকদুল খান ছেলে রাজ্জাক খান।
সরকারি খাল দখল করে বিল্ডিং নির্মাণের বিষয়ে জানতে চাইলে রাজ্জাক খান বলেন, জায়গা বন্দোবস্ত নেয়ার জন্য আবেদন করেছি। আশা করছি অল্প সময়ের মধ্যেই আমার নামে বন্দোবস্ত হয়ে যাবে।
খাল দখলের বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও পূর্জা উদযাপন কমিটির সাধারন সম্পাদক সুবাস সাহা বলেন, খালের মধ্যে দেড় দুই হাত জায়গা দখল হতে পারে। এখানে আমি একটি পার্ক করবো বলে প্রাচীর নির্মাণ করছি।
সাতৈর ইউনিয়নের ভূমি অফিসের তহশীলদার মো. আইয়ুব আলী বলেন, খাল দখল করে প্রাচীর ও বিল্ডিং নির্মাণের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি।
সাতৈর বাজার বণিক সমিতির সভাপতি সৈয়দ সাইদুর রহমান সজল বলেন, প্রাচীরটি সরকারি জায়গার মধ্যে রয়েছে। বাজারে এভাবে যদি দখল শুরু হয়, তাহলে অনেকেই এই অন্যায় কাজে যুক্ত হওয়ার সম্বাবনা থাকবে। তিনি দাবি করেন, স্থানীয় প্রশাসনের উচিত এখনই সরকারি জায়গা দখল মুক্ত করার।
বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মোহম্মাদ জাকির হোসেন বলেন, এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট্য তহশীল অফিসকে দিয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here