দৌড় কেন সবচেয়ে কার্যকর ব্যায়াম

0
115

রক্তসঞ্চালন ও হৃদযন্ত্র সচল রাখার জন্য দৌড়ানোকে সবচেয়ে কার্যকর ব্যায়াম হিসেবে গণ্য করা হয়। এ ব্যায়ামের জন্য বাহারি উপকরণ লাগবেই ব্যাপারটা এমন নয়। স্রেফ জুতো জোড়ার ফিতে বেঁধে দৌড় শুরু করলেই হলো। দৌড় দারুণ একটা ব্যায়াম। হয়তো সব ধরনের শারীরিক সমস্যার সমাধান না হলেও দৌড়ানোর ফলে অনেক সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়। এটা একদিকে যেমন শারীরিক ও মানসিক স্বস্তি বয়ে আনে, তেমনি অনেক রোগ থেকে আমাদের দূরে রাখে। দৌড় আমাদের কী কী উপকার করেতা জেনে নেই।

আত্মবিশ্বাস বাড়াতে : নিয়মিত দৌড়ের অভ্যাস যেমন আপনাকে একটা নিয়মমাফিক জীবনযাপনে সাহায্য করে তেমনি আপনাকে উদ্যমী হতেও সহায়তা করে। দৌড়ে একটা নির্দিষ্ট লক্ষ্য স্থাপন এবং সে লক্ষ্যে অর্জনের সাফল্য আপনার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সাহায্য করে। এটা সত্যি যে, আপনি যদি একটা লক্ষ্য স্থির করেন এবং তা অর্জনে সক্ষম হন তাহলে তা আপনার মানসিক আনন্দও বাড়িয়ে দেবে।

হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমাতে : দৌড় আপনার হৃৎপিণ্ডকে শক্তিশালী করে। শুধু তা-ই নয়, শরীরের রক্তপ্রবাহের দক্ষতা বাড়াতে সহায়তা করে। শরীরে অক্সিজেনের সরবরাহকে সহজ করে। এসব কারণে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা কমে যায়।

হাড় শক্ত করতে : ওজন ওঠানো সম্পর্কিত ব্যায়াম যেমন আপনার মাংসপেশি শক্ত হতে সহায়তা করে তেমনি দৌড়ও আপনার মাংসপেশিকে শক্তপোক্ত করে তোলে। ঘনত্ব বাড়ায় হাড়ের।

শক্তি বাড়াতে : শরীরের শক্তি বাড়াতে দৌড় অন্যতম এক ব্যায়াম। দৌড়ের অভ্যাস থাকলে সারা দিন এনার্জি লেভেলটা উঁচু পর্যায়ে থাকে।

ক্যালরি ক্ষয়ে : শরীরের বাড়তি ক্যালরি ক্ষয়ে দৌড় দারুণ উপকারী। নিয়মিত দৌড়ালে শরীরের অতিরিক্ত ক্যালরি যেমন নিঃশেষ হয় তেমনি আদর্শ শরীর গঠনেও সহায়ক হয়।

রক্তে শর্করা ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে : যে কয়টা উপায়ে রক্তে শর্করা ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায় এর মধ্যে সেরা উপায়টি হচ্ছে ব্যায়াম। নিয়মিত ব্যায়াম শর্করা ও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here