ফরিদপুরের কৃষ্ণপুর বাজারে বিভিন্ন সময়ে হামলা।

0
157

ফরিদপুরের বৃহৎ ব্যাবসাকেন্দ্র সদরপুরের কৃষ্ণপুর বাজারে বিভিন্ন সময়ে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের পর সর্বশেষ অগ্নি সংযোগ করে নাশকতার ঘটনায় আতংকে রয়েছে বাজারের সহস্রাধিক ব্যাবসায়ী। এতে ব্যাবসায়ীকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তারা। ভবিষ্যতে হামলা বা নাশকতার ঘটনা না ঘটে এমন ব্যাবস্থা নেয়ার গ্রহনের দাবী বাজারের ব্যবসায়ীদের।

সরেজমিনে জানা গেছে, ফরিদপুরের বৃহৎ ব্যাবসাকেন্দ্র সদরপুরের কৃষ্ণপুর বাজার। সহস্রাধিক ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে সমৃদ্ধ এ বাজারে প্রতি সপ্তাহের দুই দিনের হাটেই অন্তত ১৫ কোটি টাকার লেনদেন হয়। কৃষ্ণপুর বাজারে আদিপত্ত বিস্তারে স্থানীয় একাধিক প্রভাবশালী পক্ষ নানাভাবে চেষ্টা চালানোর অংশ হিসেবে মাঝে মধ্যেই ঘটছে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা। সর্বশেষ গত ২৭ সেপ্টেম্বর রাতে আগুনে পুড়ে যায় ৩০টি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান। আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যাবসায়ীরা অনেকেই সর্বস্ব হারিয়ে পথে বসেছেন।

ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগ, নাশকতা সৃষ্টিতেই উদ্ধেশ্যমূলকভাবে অগ্নি সংযোগ করা হয়েছে। তাদের দাবী, বিবদমান পক্ষগুলোর এক পক্ষের সমর্থকদের ঘরগুরো পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে আগুনে।

ক্ষতিগ্রস্তরা জানায়, বার বার হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিনত হয় কৃষ্ণপুর বাজার। একশ্রেনীর লোক রয়েছে যারা বাজারে হামলার নামে লুটপাটে অংশ নেয়। তাদের দাবী শুধুমাত্র আগুন লাগিয়ে নাশকতা সৃষ্টিই নয়, ইতিপুর্বে তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে হামলার নামে লুটপাটের শিকার হযেছেন শত শত ব্যাবসায়ী।

বাজারের ব্যাবসায়ী নেতৃবৃন্দের দাবী, প্রভাবশালী একটি পক্ষের বাজারে দখল নেয়ার অপচেষ্টার কারণে বাজার ব্যাবসায়ীদের জীবন ও সম্পদ হুমকীতে রয়েছে। অবিলম্বে এ বিষয়ে প্রশাসনের প্রতি ব্যাবস্থা নেয়ার আশ্বাস তাদের।

কৃষ্ণপুর বাজার ব্যাবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও কৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. বিল্লাল হোসেন ফকির জানান, ইতিপুর্বে ওই প্রভাবশালী পক্ষ নগরকান্দা উপজেলার কয়েক হাজার লোক নিয়ে বাজারে প্রবেশ করে ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ও লুটপাট চালায়। এসময় গণপিটুনিতে একজনের মৃত্যু হয়। তিনি জানান, ২৭ সেপ্টেম্বর রাতে নাশকতামূলকভাবে বাজারে আগুন দেয়ার পর থেকেই আতংকে রয়েছে ব্যাবসায়ীরা।

এদিকে সদরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সৈয়দ লুৎফর রহমান জানান, বাজারকে নিরাপদ রাখতে সবধরণের সহযোগীতা দেয়া হবে। কোন ধরনের শংসয়ের সৃষ্টি হলে তা দ্রুত প্রশাসনকে জানানোর আহ্বান জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here