ভোলায় যুবদলের কমিটি বাতিলের দাবীতে ঝাড়ু মিছিল

0
139
ভোলায় জেলা যুবদলের নব গঠিত কমিটি বাতিলের দাবীতে সোমবার দুপুরে পদবঞ্চিতরা ঝাড়– মিছিলসহ বিক্ষোভ করা হয়েছে। এ সময় কেন্দ্রীয় যুবদলের সভাপতি সাইফুল আরব নিরব ও কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী সদস্য,কেন্দ্রীয় যুবদল যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নুর ইসলাম নয়নের কুশপুত্তলিকা দাহ করে তাদের ভোলায় অবাঞ্চিত করা হয়েছে।
এদিকে পদবঞ্চিতরা সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে অভিযোগ করেন ৫০ লাখ টাকার বিনিময় অবৈধ কমিটি গঠন করা হয়েছে। তাই দ্রুত জেলা যুবদলের অবৈধ কমিটি বাতিল করা না হলে আন্দলনকারিরা গনপদ ত্যাগের আল্টিমেটাম দিয়েছে।
এদিকে যুবদলের কমিটি ঘোষনার পর থেকে গত ২ জুন থেকে ৩ দিন ধরে জেলা বিএনপি ও যুবদল অফিসে তালা ঝুলছে । এদিদেক প্রায় ১৪ বছর পর যুবদলের কমিটি গঠন করা হলেও এখনো নতুন কমিটির কোন কর্মকান্ড দেখা যায়নি। এমনকি তারা প্রতিবাদও জানায়নি।
জেলা যুবদলের পদপ্রতাশি বিদ্রোহী একটি গ্রুপ সোমবার দুপুরে জেলা বিএনপি কার্যালয় চত্তরে এক সাংবাদিক সম্মেলন করেছে। যুবদলের সভাপতি পদ প্রত্যাশি ও জেলা যুবদলের সাবেক আহবায়ক তরিকুল ইসলাম কায়েদ ও সাবেক সদস্য সচিব মো: কবির হোসেন স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্যদেন।
এসময় তারা বলেন,গত ১ জুন কেন্দ্র থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ভোলা জেলা যুবদলের আংশিক কমিটি ঘোষনা করা হয়। কিন্তু নিময় রয়েছে সম্মেলনের মাধ্যমে ২৬ জন কাউন্সিলরের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠন করা। তারা দেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতির দোহাই দিয়ে সম্মেলন করেনি।
আর তাই জেলা যুবদলের ২৬জন কাউন্সিলর গত ১২ মার্চ স্বশরীরে কেন্দ্রীয় যুবদলের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে কেন্দ্রীয় যুবদলের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে লিখিত ও মৌখিক ভাবে ভোলা জেলা যুবদলের সভাপতি হিসাবে তরিকুল ইসলাম কায়েদ ও সাধারন সম্পাদক মো: কবির হোসেনের নাম প্রস্তাব করা হয়।
ওই কপি কেন্দ্রীয় যুবলের নেতৃবৃন্দ্র গ্রহন করেও তারা কমিটি গঠন নিয়ে নানা তালবাহানা করেন। কমিটির জন্য আর্থিক ভাবে দরকষাকষি করে জেলা বিএনপির প্রস্তাবকে উপেক্ষা করে ৫০ লাখ টাকা উৎকোচ নিয়ে সরকারের সাথে আতাত করা একটি চক্রকে যুবদলের কমিটি বুঝিয়ে দেয়।
নতুন এই কমিটি বিলুপ্ত করা না হলে তৃনমূলের নেতাকর্মীরা বিএনপির রাজনীতি থেকে অব্যাহতি নেয়ার হুশিয়ারি দেন। তিনি আরো অভিযোগ করেন, যাদের কমিটিতে রাখা হয়েছে তারা কেউই দলীয় কর্মসূচীর আন্দোলন-সংগ্রামের রাজপথে ছিলেন না। তিনি হুশিয়ারী উচ্চারন করে বলেন, যুবদলের কমিটি বাতিল করা না হলে বিএনপি ও যুবদলের কার্যালয় অনিদিষ্টকালের জন্য বন্ধ থাকবে।
সাংবাদিক সম্মেলনে এসময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,যুবদলের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক আবুল কালাম বাহালুল,খায়রুল আলম মিলন,থানা যুবদলের সদস্য সচিব সবুজ প্রমুখ। পরে জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে যুবদলের সাবেক আহবায়ক তরিকুল ইসলাম কায়েদ ও সদস্য সচিব মো: কবির হোসেনের নেতৃত্বে একটি ঝাড়– মিছিল বের হয়ে শহরের কে জাহান মার্কেট চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।
সেখানে যুবদল কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের কুশপুত্তলিকাদাহ করা হয় এবং অবাঞ্চি ঘোষনা করা হয়। এদিকে জেলা বিএনপির সভাপতি গোলাম নবী আলমগীর জানান,সমস্যা সমাধানে এবং অফিস খোলার ব্যাপারে শিগ্রহী তারা উদ্দোগ গ্রহন করবেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here