নিজের মেয়েকেও চিনতে পারছেন না সৈয়দ আশরাফ খান

0
173

সৈয়দ শাফায়াতুল ইসলাম বলেন, সৈয়দ আশরাফ একজনই, তিনি অপ্রতিদ্বন্দ্বী। একদিন বাংলাদেশের ইতিহাস লেখা হবে তখন তিনি সৈয়দ নজরুল ইসলামকে (তাদের বাবা) ছাড়িয়ে যাবেন। তিনি হবেন ইতিহাসের মহানায়ক।

তিনি বলেন, তিনদিন আগে আমি ব্যাংকক থেকে এসেছি। তিনি আমাকে চিনতে পারছেন না, নিজের মেয়েকে পর্যন্ত চিনতে পারছেন না। কাউকেই চিনতে পারছেন না। তিনি গুরুতর অসুস্থ।

এ সময় সৈয়দ শাফায়াতুল ইসলাম ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে আটক তার বাবা স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের সঙ্গে অক্টোবরের শেষ সপ্তাহে শেষ সাক্ষাতে কথোপকথন উল্লেখ করে তিনি বলেন, সেদিন তিনি (সৈয়দ নজরুল ইসলাম) স্পষ্ট ভবিষ্যৎ বাণী করেছিলেন যে ঘাতকরা তাকে বাঁচতে দেবে না, মেরে ফেলবে। আসলে তাই হচ্ছে এখন।

শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. রুহুল আমিন খানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সুলতানা রাজিয়া, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শরীফ সাদী, জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ সম্পাদক এনায়েত করিম অমি ও জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক বিলকিস বেগম প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, কিশোরগঞ্জ-১ আসনের এমপি ও জননন্দিত রাজনীতিবিদ সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম অনেকদিন ধরেই অসুস্থ। তবে তার শারীরিক অবস্থা কতটা খারাপ এ নিয়ে কারও স্পষ্ট ধারণা ছিল না।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম রাজনীতিতে থাকছেন না এবং আগামী নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না- এমন ধারণা ছিল সবার। এমনকি সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ভাইদের মধ্যে কেউ একজন এই আসনে নির্বাচন করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এরই মধ্যে সৈয়দ আশরাফুর ইসলামের ছোট ভাই মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ শাফায়াতুল ইসলাম এলাকায় এসে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিচ্ছেন। এছাড়া তার অপর দুই ভাই ড. সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম ও ড. সৈয়দ শরীফুল ইসলাম কিছুদিন আগে কিশোরগঞ্জে এসে ভোটার তালিকায় নিজেদের নাম অন্তর্ভুক্ত করেছেন।

আরো পড়ুনঃ

জেনেনি বিয়ের কত দিন পর যৌনমিলনের আগ্রহ কমে যায়

গবেষণার জন্য দম্পতিদের একান্ত সময়ের আচরণগুলো নিয়ে করা ‘সম্পর্কের বয়স বাড়ার সঙ্গে কি যৌন সন্তুষ্টি কমে যায়?’ শীর্ষক এক জরিপে অংশগ্রহণ করেন ২৫ থেকে ৪১ বছর বয়সি প্রায় তিন হাজার মানুষ।গবেষকরা বলেন, “আশ্চর্যজনকভাবে দেখা যায়, দম্পতিদের যৌনজীবনের উপর সন্তান থাকা বা না থাকার খুব একটা প্রভাব নেই।”

বিয়ের পর যদি মনে হয় যৌনমিলনের উপর থেকে আগ্রহ কমে যাচ্ছে, তবে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। নতুন এক গবেষণা অনুযায়ী, সম্পর্কের এক বছর বা ১২ মাস একসঙ্গে থাকার পরই যৌনমিলনে দম্পতিদের আগ্রহ কমতেই পারে। তবে সেগুলোর কারণ নিয়মিত তর্কবিতর্ক, ঝগড়া বা সন্তান নয়।

আর সময়মতো একে অপরের যৌন পছন্দগুলো সম্পর্কে আলোচনা ও বোঝার মাধ্যমে এই পরিস্থিতিতে পরিবর্তন আনা সম্ভব। প্রধান গবেষক, জার্মানির মিউনিখে অবস্থিত লুদভিগ মাক্সিমিলিয়ান ইউনিভার্সিটির ক্লাউডিয়া স্মিজবার্গ বলেন, “আমরা দেখেছি, একটি সম্পর্কের প্রথম বছরে যৌন সন্তুষ্টির ইতিবাচক লক্ষণ দেখা যায়। পরে ক্রমেই তা কমতে থাকে।”

স্মিজবার্গ বলেন, “বৈবাহিক সম্পর্কের পরিক্রমায় যৌন সন্তুষ্টি কীভাবে পরিবর্তিত হয় তা পর্যালোচনা করতে আমরা ব্যবহার করেছি জার্মান ফ্যামিলি প্যানেল গবেষণার তিন স্তর গবেষণা।” গবেষক দলটি অঙ্গীকারবদ্ধ সম্পর্কে জড়িত তরুণ এবং মধ্যবয়সি দম্পতিদের উপর জোর দিয়ে এই পর্যালোচনা করে।

গবেষকরা বলেন, “এছাড়াও স্বাস্থ্যগত বিষয়, দম্পতিদের মধ্যে কথাবার্তায় অন্তরঙ্গতা এবং দ্বন্দ্বের ধরনও এই ফলাফলে প্রভাব বিস্তার করেছে।” আর্কাইভস অফ সেক্সুয়াল বিহেইভিয়র জার্নালে এই গবেষণাটি প্রকাশিত হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here