আবারও সৌদিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার

0
263

আবারও সৌদিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার চেষ্টা চালানো হয়েছে। সৌদির বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী জানিয়েছে, তারা একটি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহত করেছে এবং ধ্বংস করেছে।

সৌদির দক্ষিণাঞ্চলীয় খামিস মুসায়েত শহর লক্ষ্য করে ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার আগেই সেটিকে ধ্বংস করা সম্ভব হয়েছে। খবর সৌদি গ্যাজেট সৌদিতে আবারও ইয়েমেনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা সৌদি আরবের জিজান প্রদেশের আল-ফয়সাল সেনা শহরে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়। বিদ্রোহীদের এ হামলায় কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে কিনা তা এখনো জানা যায়নি। তবে ইয়েমেনের আল-মাসিরা টেলিভিশন থেকে জানানো হয়েছে, হুথি বিদ্রোহীরা তাদের নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি বাদ্র-১ ক্ষেপণাস্ত্রের মাধ্যমে বুধবার এ হামলা চালিয়েছে।

এ নিয়ে তারা গত তিন মাসে সৌদির আল-ফয়সাল শহরে দ্বিতীয়বারের মত হামলা চালালো।

গতকাল (বৃহস্পতিবার) সৌদি নেতৃত্বাধীন কয়েকটি জঙ্গি বিমান হুদাইদা বন্দর থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে একটি শরণার্থী শিবিরের ওপর বোমা বর্ষণ করলে ২২ শিশু ও চার নারী  নিহত হয়। নিহতের মোট সংখ্যা কোনো কোনো সূত্রে ৩১ জন বলে উল্লেখ করা হয়েছে যাদের সবাইই শিশু ও নারী।

চিকিৎসা ও ত্রাণ বিভাগের কর্মীরা হামলার শিকার-হওয়া অঞ্চলটিতে পৌঁছতে পারছে না বলে ইয়েমেনের স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে।

দুই সপ্তাহ আগে সা’দা প্রদেশের দাহিয়ান অঞ্চলের একটি বাজারে একটি স্কুল বাসের ওপর সৌদি বিমান হামলায় ৪০ শিশুসহ ৫১ ইয়েমেনি নিহত হয়। এ ছাড়াও ওই হামলায় আহত হয় ৫৬ শিশুসহ ৭৯ জন।

ইয়েমেনের পদত্যাগী, পলাতক ও সৌদিপন্থী প্রেসিডেন্ট মানসুর হাদিকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনার নামে ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে পশ্চিমা-মদদপুষ্ট সৌদি জোট ইয়েমেনে হামলা চালিয়ে আসছে।

এই জোটের নির্বিচার বিমান হামলায় হতাহত হয়েছে বিশ হাজারেরও বেশি ইয়েমেনি নাগরিক। হতাহতদের বেশিরভাগই বেসামরিক। ইয়েমেনের বেসামরিক অবকাঠামোর বেশিরভাগই ধ্বংস হয়ে গেছে সৌদি জোটের নির্বিচার হামলায়।

সৌদি আরবে সত্যিই কী অভ্যুত্থানের চেষ্টা হয়েছিল?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here