ইজতেমায় মামলার প্রতিবাদে যশোরে বিক্ষোভ করেছেন

0
195

সোমবার সকালে শহরের দড়াটানা ভৈরব চত্ত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসক বরাবর ছয় দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক আবদুল আওয়ল।

টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার ময়দানে নিরীহ তাবগীলের সাথী ও উলামায়ে কেরামদের ওপর হামলার প্রতিবাদে যশোরে বিক্ষোভ সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান হয়েছে।

টঙ্গী ময়দানে এতদিনর যেভাবে শুরা ভিত্তিক পরিচালিত তাবলীগের সাথী ও উলামায়ে কেরামের অধীনে ছিল তাদের কাছেই হস্তান্তর করতে হবে। অতিসত্তর কাকরাইলের সকল কার্যক্রম থেকে ওয়াসিফ ও নাসিমদেরকে বহিস্কার করতে হবে।

সারাদেশের উলামায়ে কেরাম ও শুরা ভিত্তিক পরিচালিক তাবলিগ সাথীদের উপর হামলা বন্ধ করে পূর্ণ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। টঙ্গীতে আহত নিহতদের ক্ষতিপূরণ ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।

সোমবার সকালে শহরের দড়াটানা ভৈরব চত্ত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসক বরাবর ছয় দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক আবদুল আওয়ল। এসময় যশোর জেলা তাবলীগী মারকাযের শুরা সদস্যগণ, উলামায়ে কেরাম ও সাধারণ তাবলীগী সাথীরা উপস্থিত ছিলেন।

ছয়দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- ইজতেমায় হামলার নির্দেশদাতা ওয়াসিফুল ইসলাম ও শাহাবুদ্দিন নাসিমসহ হামলায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। টঙ্গী ময়দানে এতদিনর যেভাবে শুরা ভিত্তিক পরিচালিত তাবলীগের সাথী ও উলামায়ে কেরামের অধীনে ছিল তাদের কাছেই হস্তান্তর করতে হবে।

অতিসত্তর কাকরাইলের সকল কার্যক্রম থেকে ওয়াসিফ ও নাসিমদেরকে বহিস্কার করতে হবে। সারাদেশের উলামায়ে কেরাম ও শুরা ভিত্তিক পরিচালিক তাবলিগ সাথীদের উপর হামলা বন্ধ করে পূর্ণ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। টঙ্গীতে আহত নিহতদের ক্ষতিপূরণ ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। টঙ্গীর আগামি ইজতেমা যথাসময়ে পূর্বঘোষিত ১৮,১৯ ও ২০ জানুয়ারি অনুষ্ঠানের কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here