নারায়ণগঞ্জে শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ

0
124
রাজধানীর উত্তরায় গাড়ি চাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত ঘটনায় আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়া গোলচত্ত্বরে শিক্ষার্থীরা রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে। অপরদিকে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় যানবাহন ভাংচুরের প্রতিবাদে ঢাকাÑচট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। এসময় তারা ঢাকামূখী সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।
গত সোমবার রাজধানীর উত্তরায় সড়ক দূর্ঘটনায় দুই শিক্ষার্থী নিহত এবং শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের নির্যাতনের প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জ শহরে বিক্ষোভ শুরু করেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। সকাল দশটায় শহরের বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা মিছিল করে চাষাঢ়ায় এসে জড়ো হয়। নগরীর প্রধান সড়কগুলির মুখে অবস্থান নিয়ে তারা রাস্তায় বসে ব্যারিকেট সৃষ্টি করে নানা দাবীতে বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দেয়। এসময় তার বঙ্গবন্ধু সড়ক, নবাব সলিমুল্লাহ সড়ক এবং ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডে সব ধরণের যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে। এতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জের সড়ক পথের যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যায়। শিক্ষার্থীদের ািমছল শ্লোগানে উত্তাল হয়ে পড়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাঢ়া।
স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা এসময় নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের পদত্যাগসহ ৯ দফা দাবীতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। চাষাঢ়ার মোড়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন থাকলেও শিক্ষর্থীরা প্রশাসনকে উপেক্ষা করেই তাদের বিক্ষোভ অব্যাহত রাখে। এ সময় পুলিশ তাদের বাধা না দিয়ে নীরব ভূমিকা পালন করে। এ অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ শহরে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।
ভক্সপপ: কয়েকজন শিক্ষার্থী।
অপরদিকে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় যানবাহন ভাংচুরের প্রতিবাদে ঢাকাÑচট্টগ্রাম মহাসড়কে নারায়ণগঞ্জের সাইনবোর্ড এলাকায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা। এসময় তারা ঢাকামূখী সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এতে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে মহাসড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজট এক পর্যায়ে মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে কাঁচপুর পর্যন্ত বিস্তৃত হয়। ফলে ভোগান্তিতে পড়ে গণপরিবহনের যাত্রীরা।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল আটটা থেকে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকরা মহাসড়কে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ শুরু করে। তারা এসময় সোবারের ঘটনার জন্য সরকারের কাছে নিরাপত্তা প্রদান ও সুষ্ঠু বিচারসহ ক্ষতিপূরণ দাবী করেন। এসময় মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিভিন্ন গণপরিবহনের যাত্রীরা ভোগান্তিতে পরেন। এসময় গণপরিবহনের যাত্রীদের কেউ কেউ এর প্রতিবাদ করলে পরিবহন শ্রমিকরা কয়েকজনকে মারধর করে।
ভক্সপপ: কয়েকজন পরিবহন যাত্রী।
হাইওয়ে ও ট্রাফিক পুলিশ সহ জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলেও এখন পর্যন্ত যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়নি। যানজট অব্যাহত রয়েছে। তবে জেলা পুলিশের কর্মকর্তারা জানান, মহাসড়ক সচল রাখতে সব ধরণের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here