আজ বাস চলাচল বন্ধ রেখেছেন গণপরিবহন শ্রমিকরা

0
263

দেশইনফো প্রতিবেদক: বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ষষ্ঠ দিনে রাজধানীতে গণপরিবহন চলাচল করতে দিচ্ছেন না শ্রমিকরা। এতে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। চরম দুর্ভোগে পড়েছেন যাত্রীরা।

মিরপুর সাড়ে ১১-তে পরিস্থান পরিবহনের একটি গাড়ি থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেয় ১০-১২ জনের এক দল শ্রমিক। তারা বলেন, মালিক সমিতি ধর্মঘট ডেকেছে। কোনো গাড়ি চলতে দেয়া হবে না। শিক্ষার্থীদের গাড়ি ভাঙচুরের প্রতিবাদে আজ মালিক সমিতি ধর্মঘট ডেকেছে বলেও জানান তারা।

তবে মিরপুরের ডিসি (ট্রাফিক-পশ্চিম) লিটন কুমার সাহা বলেন, মালিক সমিতি এখনও ধর্মঘট ডাকেনি। তাদের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তারা ডাকতে চাইলে আমরা তাদের না করেছি। তবে বিচ্ছিন্নভাবে শ্রমিকরা গাড়ি থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দিতে পারেন।

এদিকে নৌমন্ত্রী শাজাহান খানের পদত্যাগ এবং ঘাতক চালকের ফাঁসিসহ ৯ দফা দাবিতে বৃহস্পতিবার ছুটির দিনে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। অন্দোলনের পঞ্চম দিনে রাজধানী ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, সিলেট, বরিশাল, রংপুর, বগুড়া, যশোরসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় দিনভর বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা।

অন্যদিকে, নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলন প্রমশন করতে সরকার ১১টি পদক্ষেপ নিয়েছে। গৃহীত সরকারের পদক্ষেপসমূহের মধ্যে রয়েছে, শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজকে ৫টি বাস দেয়ার কথা ঘোষণা করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এ বিষয়ে নিজের ভেরিফায়েড পেজে ১১টি পদক্ষেপের কথা তুলে পোস্ট দেন তথ্য সরকারের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক।

সরকারের গৃহীত পদক্ষেপগুলো হলো-

১) নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নে ও দুর্ঘটনা রোধে রমিজ উদ্দিন স্কুল সংলগ্ন বিমানবন্দর সড়কে আন্ডার পাস নির্মাণ
২) দেশের প্রতিটি স্কুল সংলগ্ন রাস্তায় স্পিড ব্রেকার বসানো
৩)শুধু স্কুলের জন্য প্ল্যাকার্ড সম্বলিত বিশেষ ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগ দেয়ার কথাও ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী।
৪)দুর্ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত জাবালে নূরের ২টি বাসের রুট পারমিট বাতিল করা হয়েছে।
৫) জাবালে নূর পরিবহন বাস মালিকদের একজন মো. শাহাদাৎ হোসেন এবং গাড়ির চালক মো. মাসুম বিল্লাহ সাত দিনের রিমান্ডে নেয়া হয়েছে।
৬) অপ্রাপ্তবয়স্ক ও ড্রাইভিং লাইসেন্সবিহীন অবৈধ গাড়ি চালকদের বিরুদ্ধে এবং বিমানবন্দর সড়কে ০২ জন শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ৭) ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথিরিটি (বিআরটিএ) এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কে নির্দেশ
৮) সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা ও দ্রুত মামলা শেষ করার বিধান রেখে বিদ্যমান আইন সংশোধন করে কঠোর ট্রাফিক আইন দ্রুত পাশ করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।
৯) বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ সড়ক দূর্ঘটনা রোধে গণপরিবহনের ফিটনেস যাচাইয়ে বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ১৫ সদস্যের কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে ফিটনেসবিহীন যান চলাচল বন্ধের নির্দেশ দেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here